বুধবার | ১২ মে, ২০২১ | ২৯ বৈশাখ, ১৪২৮
সময় নিউজ ২৪ > দেশ ও জনপদ > আশাশুনির প্রধান শিক্ষক কামরুন নাহার পেলেন স্বাধীনতা স্মৃতি এ্যাওয়ার্ড

আশাশুনির প্রধান শিক্ষক কামরুন নাহার পেলেন স্বাধীনতা স্মৃতি এ্যাওয়ার্ড

আশাশুনির প্রধান শিক্ষক কামরুন নাহার পেলেন স্বাধীনতা স্মৃতি এ্যাওয়ার্ড

জিএম আল ফারুক, আশাশুনি (সাতক্ষীরা): আশাশুনি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক কামরুন নাহার কচি শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় ‘স্বাধীনতা স্মৃতি এ্যাওয়ার্ড-২১’ এ ভ‚ষিত হয়েছেন। ঢাকার সেগুনবাগিচায় কেন্দ্রীয় কচি-কাঁচার মেলা মিলনায়তনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে স্বাধীনতা স্মৃতি পরিষদের পক্ষ থেকে গুণীজন সংবর্ধনায় তাকে এ এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে এ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিচারপতি মু. মমতাজ উদ্দিন। আন্তর্জাতিক অপরাধ তদন্ত সংস্থার উপ-পুলিশ কমিশনার ও স্বাধীনতা স্মৃতি পরিষদের উপদেষ্টা কবি নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক ছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এড. শামসুল হক টুকু। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সাবেক সচিব ড. মোহাম্মদ জাকারিয়া, অর্থ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব পীরজাদা শহীদুল হারুন, সাবেক ডিআইজি মুক্তিযোদ্ধা মু. আনোয়ার হোসেন, আইএনবি সংবাদ সংস্থার চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার জাকির আহম্মাদ প্রমুখ। ‘স্বাধীনতার ৫০ বছরে আমাদের প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা’ শীর্ষক আলোচনা সভা শেষে আশাশুনি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক কামরুন নাহার কচিকে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

আশাশুনি সেবাশ্রমের স্বামীজী সোমানন্দজী আর নেই
আশাশুনি সেবাশ্রম এর স্বামীজী সোমানন্দজী মহারাজ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। রবিবার রাতে তিনি সেবাশ্রমে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। অধ্যক্ষ সোমানন্দজী মহারাজ রবিবার রাতে যথারীতি আশ্রমে নির্দিষ্ট কক্ষে ঘুমোতে যান। রাতের কোন এক সময় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ভোর ৪ টার দিকে প্রার্থনার সময় না ওঠায় ডাকাডাকি করেও সাড়া না পাওয়ায় আশ্রমের লোকজন বিভিন্ন স্থানে মোবাইলে ঘটনা জানান। খবর পেয়ে তারা আশ্রমে পৌছে ঘরের দরজা ভেঙ্গে তাকে মৃতাবস্থায় দেখতে পান। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে, অধ্যক্ষ সোমানন্দজী ৭ বছর বয়সে আশ্রমে আসেন। ১৯৮৫ সালে তৎকালীন স্বামীজীর মৃত্যুর পর তিনি অধ্যক্ষের দায়িত্ব গ্রহন করেন। সেই থেকে নিরলস ভাবে, সাবলীল আচরণের মাধ্যমে মানুষের হৃদয় জয় করে অর্পিত দায়িত্ব পালন করে এসেছেন।

কমেন্টস

Leave a comment

x