বৃহস্পতিবার | ৫ আগস্ট, ২০২১ | ২১ শ্রাবণ, ১৪২৮
সময় নিউজ ২৪ > সাতক্ষীরা > আশাশুনি উপজেলা পরিষদ এলাকায় জলাবদ্ধতার ফাঁদে ৪টি অফিস: ভোগান্তি

আশাশুনি উপজেলা পরিষদ এলাকায় জলাবদ্ধতার ফাঁদে ৪টি অফিস: ভোগান্তি

আশাশুনি উপজেলা পরিষদ এলাকায় জলাবদ্ধতার ফাঁদে ৪টি অফিস: ভোগান্তি

জি,এম আল ফারুক, আশাশুনি (সাতক্ষীরা): আশাশুনি উপজেলার অনেককিছুর উন্নয়ন হলেও বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান ও অফিস জলাবদ্ধতার কারণে বছরের পর বছর ভোগান্তিতে রয়ে গেছে। ফলে ঐ সব প্রতিষ্ঠান ও অফিসে আগতদের দুর্দশা বছরের বেশীর ভাগ সময় বিপত্তিকর পরিস্থিতির উদ্ভব ঘটিয়ে চলেছে। উপজেলা সদরের বাজার থেকে শুরু করে উপজেলা পরিষদ এলাকায় না ছিল সড়ক, না ছিল পয়ঃ নিস্কাশনের সুব্যবস্থা। দীর্ঘকাল বাজার ও অফিসে আগত মানুষ ও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে জলাবদ্ধতার মুখোমুখি হতে হয়েছে। গেল বছর উপজেলা পরিষদের অভ্যান্তরের সড়ক নির্মান করা হয়েছে। বাজার সড়কের কাজ শুরু করা হলেও বন্দ রয়েছে। কিন্তু সড়কের সাথে সাথে পয়ঃ নিস্কাশন ব্যবস্থা কার্যকর করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি নদীর পানি বাজারের ভিতরে প্রবেশ করে প্রধান সড়কে হাটু পানি দেখা গেছে। পানি উপচানো বন্দের লক্ষ্যে কিছু এলাকায় মাটির বিকল্প বাঁধ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু উপজেলা পরিষদ এলাকার পয়ঃ নিস্কাশন ব্যবস্থা সচল করতে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। হাসাপাতাল সড়কে একপাশে ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয় করে শুরু করা হলেও এভাবেই শেষ করা হয়েছে যে, ড্রেন কোন প্রকার উপকারে আসছেনা। উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদ চত্বর পানিতে ডুবে আছে সেই বর্ষার শুরু থেকে। ডুবে আছে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনের চত্বর, দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তার অফিস চত্বর, আশাশুনি প্রেসক্লাবের সামনের সড়ক ও হাসপাতালে যাতয়াতের একমাত্র সড়ক। খাদ্য অফিসে যেতে হলে জুতা খুলে যেতে হয়। হাসপাতাল ও প্রেসক্লাবে যাতয়াত তথৈবচ বললেও ভুল হবেনা। এ ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন এমনটি দাবী ভুক্তভোগীদের।

আশাশুনি লকডাউনের ১১তম দিন অনেকটা ঢিলেঢালা ভাব
আশাশুনিতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কঠোর লকডাউনের ১১তম দিনে প্রশাসন, সেনাবাহিনী, পুলিশ ও আনসার সদস্যদের তৎপরতা থাকলেও পূর্বের তুলনায় বেশ ঢিলেঢালা ভাবে লকডাউন পালিত হয়েছে। রবিবার সকাল থেকে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশ ব্যারিগেড দিয়ে সড়কে চেকপোষ্ট বসিয়েছিল। যানবাহন চেক করে অবৈধ যানবাহনকে ফেরৎ পাঠানো হলেও কাউকে জরিমানা বা আটক করা হয়নি। উপজেলা প্রশাসন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা সমন্বিত ভাবে মাঠে ছিলেন। থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবিরের নেতৃত্বে পুলিশের পৃথক অভিযান ও সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে তৎপর ছিলেন। তবে বিধিনিষেধ অমান্যের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা, কাউকে গ্রেফতারের খবর ও জরিমানা করা হয়নি। অধিকাংশ বাজারে বা প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে অনেক দোকান বন্দ থাকলেও নির্দেশ অমান্য করে কিছু কিছু দোকান খুলে রাখা হয়েছে। সড়কগুলোয় ইজিবাইক, ইঞ্জিনভ্যান, মটর সাইকেল, মালবাহী পিকআপ-ট্রাক চলাচল করতে দেখাগেছে অন্যদিনের তুলনায় একটু বেশী। উপজেলার অধিকাংশ বাজারে মানুষের উপস্থিতি পূর্বের তুলনায় কমলেও এখনো উদ্বেগজনক রয়েছে।

আশাশুনিতে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত
বিশ্ব জন সংখ্যা দিবস উপলক্ষে আশাশুনিতে ভার্চুয়ার সভা ও সফল কর্মী ও প্রতিষ্ঠানকে সনদ প্রদান করা হয়েছে। রবিবার সকালে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। “অধিকার ও পছন্দই মূল কথা ঃ প্রজননস্বাস্থ্য ও অধিকার প্রাধান্য পেলে, কাঙ্খিত জন্মহারে সমাধান মেলে।” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ভার্চুয়াল আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হুসেইন খাঁনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার, উপজেলা কৃষি অফিসার রাজিবুল হাসান ও বুধহাটা ইউপি চেয়ারম্যান আ ব ম মোছাদ্দেক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, মেডিকেল অফিসার (এমসিএইচএফপি) ডাঃ পলাশ দত্ত। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম। আলোচনা শেষে বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠত্বের জন্য সনদ পত্র প্রদান করা হয়। #

Share this:

কমেন্টস

Leave a comment

x