কপিলমুনির ভৈরবঘাট হতে তালতলা ব্রিজ পর্যন্ত ৬ কি.মি. কাঁচা রাস্তার বেহাল দশা

কপিলমুনির ভৈরবঘাট হতে তালতলা ব্রিজ পর্যন্ত ৬ কি.মি. কাঁচা রাস্তার বেহাল দশা

শেখ আব্দুস সালাম, ডুমুরিয়া (খুলনা): পাইকগাছা কপিলমুনি ইউনিয়নের ভৈরবঘাটা হতে তালতলা ব্রিজ পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার গ্রাম্য কাঁচা রাস্তার বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। উচুঁ নিচু মাটির ঢিবি আর ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে সামন্য বৃষ্টিতে কাঁদা পানিতে একাকার হয়ে সাধারণ মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তাটির এমন বেহাল অবস্থা সৃষ্টি হলেও আজও পাকা করণের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। এমনটি জানিয়েছেন, ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ। স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে রাস্তাটি তৈরি করেন,সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ। সরেজমিনে ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ওই রাস্তায় বিভিন্ন অধিকাংশ স্থানে ছোট-বড় মাটির ঢিবি ও গর্তের সৃষ্টি হয়ে চরম ঝুঁকি পূর্ণ হয়ে পড়েছে ।
ফলে সামন্য বৃষ্টিতে কাঁদাপানিতে একাকার হয়ে যায়। দীর্ঘদিন এমন বেহাল অবস্থা সৃষ্টি হলেও প্রত্যান্ত জনপদের এ রাস্তটি পাকা করণ হয়নি এমনটি দাবী করেছেন এলাকাবাসী ।
ফলে সম্প্রতি কালে রাস্তাটি ব্যবহারে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কপিলমুনি, লতা,শামুকপোতা,শচিয়ারবন্দ,পুটিমারি,তেঁতুলতলা,গদারডাঙ্গা,ভৈরবঘাটা,বাহিরবুনিয়া,কাঁঠামারি,নাবা, সহ অনেক গ্রামের মানুষের যাতায়াতে রাস্তাটি ব্যবহার হয়ে থাকে । এলাকার কৃষকের উৎপাদিত মাছ, ধান ও সবজিসহ নানা পন্য সামগ্রী বাজার জাত করতে যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে রাস্তাটি। এছাড়া রাস্তার পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া হাড়িয়া নদীর চরে খাস জায়গায় গড়ে উঠেছে সরকারি আবাসন প্রকল্পের ঘরবাড়ি। সেখানে বসবাস করছেন, অনেক ভুমিহীন অসহায় পরিবার। রাস্তা টি বেহাল থাকার করনে অবাসন এলাকার বাসিন্দারা রয়েছে চরম ভুগান্তীতে। প্রত্যান্ত অঞ্চলের এ রাস্তাটি বৃষ্টি মৌসুমে কাঁদা পানি উপেক্ষা করে ঝুঁকি নিয়ে স্কুল কলেজে যাওয়া আসা করতে হয় কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষের। প্রত্যান্ত জনপদের মানুষের যাতায়াতে এ রাস্তাটি ব্যবহার হয়। স্থানীয় কৃষক সাবেক মেম্বর মতলেব সানা, উত্তম মন্ডল, সঞ্জয় মন্ডল, আলাল উদ্দিন সরদার,আব্দুল জলিল বিশ্বাস সমীর কুমার মন্ডলসহ এলাকাবাসী রাস্তাটি পাকা করণের লক্ষে সংশ্লিষ্ট উধর্ধতন কতৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।
এ প্রসংগে কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ কাওছার আলি জোয়ার্দার বলেন, রাস্তাটি জনগুরুত্বপূর্ণ। ইট দ্বারা উন্নিত করণের পরিকল্পনা রয়েছে। তাছাড়া জনদূর্ভোগ লাঘবে
রাস্তাটি স্থায়ী ভাবে পাকা করণের লক্ষে স্থানীয় এমপি মহোদয়ের সাথে কথা বলেছি।