শনিবার | ৮ মে, ২০২১ | ২৫ বৈশাখ, ১৪২৮
সময় নিউজ ২৪ > গাইবান্ধা > গাইবান্ধায় ওসিসহ দুই পুলিশ প্রত্যাহার

গাইবান্ধায় ওসিসহ দুই পুলিশ প্রত্যাহার

গাইবান্ধায় ওসিসহ দুই পুলিশ প্রত্যাহার
মাসুম বিল্লাহ, গাইবান্ধা: গাইবান্ধার জেলা আ.লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মাসুদ রানার বাড়ি থেকে জুতা ব্যবসায়ীর হাসান আলীর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় সদর থানার ওসি (তদন্ত) মুজিবুর রহমান ও এস আই মোশাররফ হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সাথে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজুর রহমানের কাছে ব্যাখ্যাও চেয়েছে জেলা পুলিশ।
গতকাল মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) রাতে ঘটনার তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে ওই দুই পুলিশ সদস্যের কর্তব্য অবহেলার প্রমাণ পাওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেন জেলা পুলিশ। গতকাল রাতেই অভিযুক্ত ওসি (তদন্ত) মজিবর রহমান ও এসআই মোশাররফ হোসেনকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম সময়নিউজকে বলেন, “দায়িত্ব অবহেলার কারণে দুই পুলিশ সদস্যকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সাথে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে ঘটনার ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।”
এর আগে গত ১০ এপ্রিল আ.লীগ নোতার বাড়ি থেকে হাসান আলীর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনার পরদিন ওই দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে দায়িত্বহীনতার অভিযোগ আনাসহ মাসুদ রানা, পাদুকা ব্যবসায়ী রুমেন হক ও খলিলুর রহমান বাবুকে আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত হাসান আলীর স্ত্রী বিথী বেগম। পুলিশের দায়িত্ব অবহেলার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে সেদিনই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) রাহাত গাওহারীকে প্রধান করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) আবুল খায়ের ও পুলিশ পরিদর্শক মো. আব্দুল লতিফসহ তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে জেলা পুলিশ। কমিটিকে ৭ কার্যদিবসের মধ্যে ঘটনাটি সরেজমিনে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।
উল্লেখ্য গত ৫ মার্চ ব্যবসায়ী হাসান আলীকে লালমনিরহাট থেকে অপহরণ করেন জেলা আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক মাসুদ রানা। এরপর বিভিন্ন জায়গায় তাকে আটক রেখে নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পসহ সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেন। এ ছাড়া হাসান আলীর পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবিও করেন রানা। এরপর হাসান আলীকে উদ্ধারের জন্য গাইবান্ধা সদর থানায় অভিযোগ করেন তার স্ত্রী বিথী বেগম। পরে সদর উপজেলার বল্লমঝার ইউনিয়নের নারায়ণপুর মাসুদ রানার গ্রামের বাড়ি থেকে হাসান আলীকে উদ্ধার করলেও, ফের হাসান আলীকে অপহরণকারী মাসুদ রানার জিম্মায় দেয় পুলিশ। এ ঘটনার পর গত ১০ এপ্রিল একই স্থান সদর উপজেলার বল্লমঝার ইউনিয়নের নারায়ণপুর মাসুদ রানার গ্রামের বাড়ি থেকে হাসান আলীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার দিন অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা মাসুদ রানাকে আটক করা হয়। পরে হত্যা মামলায় মাসুদ রানাকে গ্রেফতার দেখিয়ে চারদিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ঘটনার পরদিনই মাসুদ রানাকে জেলা আ.লীগ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।

কমেন্টস

Leave a comment

x