বাংলাদেশের নতুন ভিসা কেন্দ্র এবার শিলিগুড়িতে

বাংলাদেশের নতুন ভিসা কেন্দ্র এবার শিলিগুড়িতে
পার্থ নিয়োগী, পশ্চিমবঙ্গ (ভারত): এবার আর দক্ষিণবঙ্গ হয়ে নয় মিতালী এক্সপ্রেসের সৌজন্যে হলদিবাড়ি হয়ে চিলাহাটি স্টেশন দিয়ে ঢাকা যেতে পারবে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর অংশের মানুষ। আবার সড়ক পথেও চ্যাংরাবান্ধা ও ফুলবাড়ি স্থল বন্দর হয়েও শিলিগুড়ি থেকে শ্যামলী পরিবহনের দুটি বাস বাংলাদেশ যাবে। ফলে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর অংশের মানুষের বাংলাদেশ যাবার প্রচুর সুবিধা হতে যাচ্ছে। তবুও উত্তরবঙ্গের মানুষের বাংলাদেশ ভ্রমণের একটা প্রধান অন্তরায় হয়ে উঠেছিল বাংলাদেশের ভিসা সংগ্রহ নিয়ে। কারন উত্তরবঙ্গ থেকে বাংলাদেশের ভিসা সংগ্রহের কোন কেন্দ্র ছিলনা। ফলে বাংলাদেশের ভিসা সংগ্রহের জন্য উত্তরবঙ্গ বাসীকে ১৪ থেকে ১৫ ঘন্টা সময় ব্যয় করে কলকাতায় বাংলাদেশ সরকারের উপদূতাবাস থেকে ভিসা সংগ্রহ করতে হত। এটা ছিল এক মস্ত সমস্যা। কিন্তু এবার এই সমস্যা কাটাতে এগিয়ে এল বাংলাদেশের সোনালী ব্যাংক সংস্থা। শিলিগুড়ির সেবক রোডে তাদের অফিসেই করা যাবে ভিসার আবেদনপত্র। ফলে পশ্চিমবঙ্গের উত্তরাঞ্চলের মানুষের মধ্যে যথেষ্ট উৎসাহের সঞ্চার হয়েছে। সাধুবাদ জানিয়েছেন কোচবিহারের বিখ্যাত কবি সুবীর সরকার। মাঝেমধ্যেই সাহিত্য চর্চার জন্য তাকে বাংলাদেশ যেতে হয়। ফলে এখন থেকে বাংলাদেশ যেতে হলে আর সময় নষ্ট করে কলকাতা ছুটতে হবেনা। এতে দুই বাংলার বিশেষ করে দুই উত্তরবাংলার বন্ধন আরও দৃঢ় হবে বলে তার আশা। কোচবিহারের তরুণ কবি নীলাদ্রী দেব শিলিগুড়ি থেকে বাংলাদেশের ভিসা পাওয়া যাবে খবরটি শোনামাত্র আনন্দে ভাসছেন। নীলাদ্রী দেব বলেন ‘ বাংলাদেশ মানেই এক নস্টালজিয়া আমার কাছে। আমার পূর্বপুরুষের জন্মস্থান। তিন বছর বয়স থেকেই বাংলাদেশ যাওয়া শুরু আমার। আর শিলিগুড়ি থেকেই এখন বাংলাদেশের ভিসা পাওয়া যাবার জন্য আমার মত আরও অনেকের খুব সুবিধা হবে’ বলে তিনি  মত ব্যাক্ত করেন। শিলিগুড়িতে বাংলাদেশের নতুন ভিসা কেন্দ্র চালুর ফলে এপারের উত্তরবঙ্গ থেকে আরও বেশি করে মানুষ বাংলাদেশে যাবে। ফলে মজবুত হবে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প। সেই সাথে দুই বাংলার সাংস্কৃতিক বন্ধন আরও দৃঢ় হবে ।