রবিবার | ২৪ অক্টোবর, ২০২১ | ৮ কার্তিক, ১৪২৮
সময় নিউজ ২৪ > লাইফস্টাইল > সুস্থ্য ও ঝরঝরে রাখতে লেবুর বাজিমাত

সুস্থ্য ও ঝরঝরে রাখতে লেবুর বাজিমাত

সুস্থ্য ও ঝরঝরে রাখতে লেবুর বাজিমাত

অনলাইন ডেস্ক: ডায়েট শেষ হওয়ার পরই চর্ব-চোষ্য নয়, বলাই বাহুল্য। প্রথম দিন কেবল টাটকা কমলালেবুর রস। দ্বিতীয় দিন ভেজ ক্লিয়ার স্যুপ। তৃতীয় দিন থেকে গাঢ় ভেজিটেবল স্যুপ দেওয়া যাবে। চার দিনের মাথায় সেমি সলিড খাবারর শুরু করে আস্তে আস্তে নর্মাল লো ক্যালোরির সুষম ডায়েটে ফিরতে হবে। সঙ্গে থাকবে ব্যায়ামের সঙ্গত। ডায়েট ও তার আগে-পরের খাওয়া ও ব্যায়ামের নিয়ম ঠিক করে মানতে পারলে ওজন কমবে হু-হু করে। কিন্ত্ত কিছুদিন পর হাল ছেড়ে দিলে আবার ফেরত আসবে সব। কাজেই লো-ক্যালোরির সুষম খাবার ও ব্যায়ামকে চির জীবনের মতো আপনার সঙ্গী করে নিন।
লেমন ডিটক্স ডায়েটের প্রাণ-ভোমরা হলো লেবু। লেবুর যে গুণের অন্ত নেই, তা সবারই জানা। এতে ফাইবার, প্রোটিন, ভিটামিন সি-এ-বি, ক্যালসিয়াম, জিঙ্ক, আয়রন ইত্যাদি নানাবিধ উপাদান আছে। আছে সামান্য কার্বোহাইড্রেট ও সুগারও। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে এক গুণপনা সুবিখ্যাত। কাজেই শরীরে কুলোলে এ কাজের কাজই করবে। বড় টেবিল চামচের দু-চামচ লেবুর রস ও আখের রস বা পিওর ম্যাপল সিরাপে এক চিমটে লাল লবনের গুঁড়া আর গ্লাস ভর্তি জল মেশালেই ডায়েট তৈরি। খিদে পেলে বা প্রতি দু-ঘণ্টা অন্তর এক গ্লাস করে খান। দিনে ৬-১২ গ্লাস। প্রতিবার টাটকা বানিয়ে। আগামী ১০ দিন, এই হবে আপনার খাদ্য ও পানীয়। এর পাশাপাশি দিনে দু-বার করে সল্ট-ওয়াটার নিন।
খিদেয় প্রাণ ওষ্ঠাগত হবে? নাও হতে পারে। কারণ এই ডায়েট শুরু করার আগে বেশ কিছু দিন ধরে খাবারের পরিমাণ একটু একটু করে কমিয়ে শরীরকে তার সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। তারপর যখন বোঝা যাবে কম খেয়েও বিশেষ অসুবিধা হচ্ছে না, তখন শুরু হবে এই ডায়েট। বুঝতেই পারছেন কম খেতে শুরু করার পর থেকে ওজন যে একটু একটু করে কমতে শুরু করবে, তার পালে জোরদার হাওয়া লাগবে। তবে হ্যাঁ, খাবারের পরিমাণ যত কমাবেন, পাল্লা দিয়ে তার গুণপনা বাড়াতে হবে। অভিজ্ঞ ডায়াটিশিয়ানের পরামর্শ ছাড়া যা সম্ভব নয়। সঙ্গে নিতে হবে ডাক্তারের পরামর্শও। ডায়েটের এই ব্যাপক রদবদলে আপনার কোনও ক্ষতি হতে পারে কি না তা খতিয়ে দেখবেন তিনি। প্রয়োজনে সাপলিমেন্টের ব্যবস্থাও করবেন।
সতর্ক বার্তা
কম বয়স ও ভালো স্বাস্থ্য না থাকলে এই ডায়েট করবেন না।ডায়েট শুরুর আগে ও পরে প্রোটিনসমৃদ্ধ ডায়েট একটু-আধটু মডিফাই করে নিতে পারেন। এক-আধ কাপ ডাবল টোনড দুধ বা এই দুধে বানানো দইয়ের ঘোল, এক বাটি চিকেন, ক্লিয়ার স্যুপ বা পালং-গাজর-টমেটো জ্যুস, কি এক-আধটা শশা খেলে যদি ১০ দিন কাটানো সহজ হয়, করে দেখতে পারেন।ডায়েট চলাকালীন রোদে ঘুরলে বা ভারি ব্যায়াম করলে সমস্যা হতে পারে।কোনো কষ্ট হলে সঙ্গে সঙ্গে ডাক্তারের পরামর্শ নিন ও তিনি বললে ডায়েট বন্ধ করে দিন।

Share this:

কমেন্টস

Leave a comment

x